Hit enter after type your search item
মাহবুবওসমানী.কম

ডিজিটাল মার্কেটিং ব্লগ

Facebook Marketing Course – ফেসবুক মার্কেটিং কোর্স

/
/
/
189 Views

Facebook Marketing Course

 

Facebook Marketing Course – ফেসবুক মার্কেটিং কোর্স বাই বাইটকোডসফট

 

Benefits of Facebook groups for business:

  1. It’s a direct line to customers.
  2. You’ll build long-lasting relationships with customers.
  3. You’ll increase your organic reach.
  4. Public.
  5. Private and visible. > ফেসবুক বা সার্চ ইঞ্জিনে সার্চ করলে খুঁজে পাবে।
  6. Private and hidden. > ফেসবুক বা সার্চ ইঞ্জিনে সার্চ করলে খুঁজে পাবেনা।
  7. As a customer support community.
  8. As a learning and engagement tool.
  9. Facebook Group Creation Link: https://www.facebook.com/groups/create/

Benefits of Facebook Page for business:

1. Reach BILLIONS of potential customers.

2. Build a HUGE email list.

3. Lower your marketing expenses.

4. Target audiences by location, demographics, interests

5. Gain insights into your audience.

6. Build brand loyalty.

7. Increase your website traffic.

8. Boost SEO

9. Reach people on their phones

10. Spy on your competitors

11. Facebook Page Creating Link: https://www.facebook.com/pages/creation/

12. 8 Ways to Optimize Your Facebook Page

  1. Work on Your Page Details, a Checklist. Add a profile picture.
  2. Select the Best Template.
  3. Select the Page CTA.
  4. Add Page Tabs to Promote Your Products or Services.
  5. Upload Your (Hot, Seasonal, etc.)
  6. Enable Reviews.
  7. Update and Engage.

13 . Facebook page monetization rules:

https://www.facebook.com/business/learn/lessons/earn-money-in-stream-ads-videos

Eligibility Requirements for video on demand

  • 600,000 total minutes viewed in the last 60 days. This can include on-demand, live, or previously live videos. This does not include minutes viewed from crossposted, boosted, or paid watch time.
  • The page has at least five active videos. Videos can be on-demand or previously live, but this does not include active crossposted videos.

Additional requirements for live videos

  • At least 60,000 minutes of the 600,000 total minutes viewed in the last 60 days must include minutes viewed from live videos.
  • 10000 followers * 6 = $60,
  • 600 K minutes views * 2.5 = $1500 USD,
  • Total my costing = 1550, Before it was 30k minutes views, now FB changed rules 30k to 600K MV,
  • Upwork fee is: $160 So now total price is:$ 1720, but I have said 1600 as my first client, and need one month to complete the project,
  • You have to pay me 70% in advance

To Get Facebook Support:

ভিডিও গুলি দেখে ফেসবুক পেইজ এবং প্রোফাইল তৈরিঃ

  1. Facebook Page & Group Benefits: https://youtu.be/y-C60INYrPI
  2. Introduce with Facebook Marketing: https://youtu.be/zJgCMCnDvSk
  3. Explore Facebook Algorithm, Content Strategy & Content Calendar: https://youtu.be/-wYQLeqoXpI
  4. Explore Facebook Algorithm, Content Strategy & Content Calendar: https://youtu.be/_KPWoRcOaoA
  5. Facebook Page, Group, Event & Offer Discussion: https://youtu.be/cgwi103MNWg ( এই ক্লাস টি ভালো ভাবে দেখবেন )
  6. Facebook Ad Creation Using Facebook ad Manager & CV Criticism: https://youtu.be/JrcNScCHXLQ
  7. Facebook Ad Class: Facebook Ad Creation Using Facebook Business Manager: https://youtu.be/7pwYQtpPI5w
  8. Facebook Business Manager Verification & Pixel Setup: https://youtu.be/9Q2fWDwbUu4Fb Ad Evaluation and Live Digital Marketing Project: https://youtu.be/psubv2z9fJoFB Ad Evaluation and Future Strategy Building, Posting To Bangla Website: https://youtu.be/RHMwNJZuJ_I

 

Facebook Advertisement / Boosting

  • Facebook Ads Ruleshttps://www.facebook.com/policies/ads/ ( খুব ভালো করে পড়ে নিবেন, না হয় এড একাউন্ট ডিজাবেল হয়ে যাবে, রুলস ২ বারের বেশি ভায়োলেশন করলে এডস একাউন্ট ডিজাবেল করে দিবে। )
  • এড দেয়ার জন্য এই লিংকঃ https://www.facebook.com/ad_center/create/ad/ অথবা https://business.facebook.com/latest/home
  • আমরা দুইভাবে এড দিতে পারিঃ  ১ নাম্বার পেইজ থেকে, পেইজ থেকে এড দিতে হলে এডমিন থাকা লাগবে। এডমিন করতে হলে, পেইজ সেটিং > পেইজ রোল> নাম টাইপ করতে হবে > রোল সিলেক্ট করতে হবে > পাসওয়ার্ড দিয়ে সাবমিট করতে হবে ।
    ২ নাম্বার হচ্ছে এড ম্যানাজার থেকে, বর্তমানে ৫ দিনের কম এড দিলে তেমন ভালো রেজাল্ট আসেনা, বাজেট মিনিমাম ৩ ডলার পার ডে অথবা ২০০ টাকা।
  • পেমেন্ট মেথডঃ business.facebook.com > More Tools > Biling > Payment Setting > Ad Payment Method: পাসপোর্ট > ব্যাংক থেকে মাস্টার কার্ড এপ্লাই করতে হবে > ৫০০০ + ১৫% ট্যাক্স।
  • HW : পেইজ থেকে একটা এড এবং বিজনেস ম্যানাজার থেকে ১ এড তৈরি ( অডিয়েনস সহ ) করে ড্রাফট করে রাখবেন।HW of 11 July 2021, Sunday: পেইজ থেকে একটা এড এবং বিজনেস ম্যানাজার থেকে ১ এড তৈরি ( অডিয়েনস সহ ) করে ড্রাফট করে রাখবেন।
  • About campaign spending limits: https://www.facebook.com/business/help/481733105308636?id=326963134374796
  • Facebook Ads Support: https://www.facebook.com/facebookadsupport/
  • Create a Campaign Spending Limit: https://www.facebook.com/business/help/2381321701940434?id=326963134374796
  • পরামর্শ হচ্ছে এডের জন্য কিছুটা ওল্ড একাউন্ট ইউস করতে হবে, পেমেন্ট সিস্টেম ১০০% আপডেট রাখতে হবে , ফেসবুক চাইলেই যাতে বিল এনি টাইম কেটে নিতে পারে, পসিবল হলে বি এম ভেরিফাই করে নিতে হবে, ১ম ১/২ মাস একাউন্ট টি এক ডিভাইসে ইউস করতে হবে, বি এমে একাধিক এডমিন কে এড একাউন্টে এক্সেস দিয়ে রাখতে হবে, ইত্যাদি।
    আর এখন ওদের সাপোর্ট সিস্টেম অনেক কম রিস্পন্স করে, এবং তেমন কোন হেল্প করতে পারেনা, অথবা করেনা, মাঝে মাঝে কিছু অদক্ষ SA পাওয়া যায়।

ফেসবুক এডের কষ্টিং কি ভাবে কমাবেন?

আপনি যখন ফেসবুকে কোন পোস্ট বুষ্ট বা প্রমোট করেন তখন সেই এডটি রিভিউ এর জন্য ফেসবুক টিমের কাছে চলে যায়। কিছু কিছু ক্ষেত্রে এটি মেশিন লার্ণিং এর অটোমেশন এর মাধ্যমেও রিভিউ হয়ে থাকে। একটি এড যখন এপ্রুভ হয় তখন এটি বেশ কিছু ধাপে আপনার সঠিক অডিয়েন্সের কাছে পৌছায়। আর এটিকে ফেসবুক লার্নিং ফেইজ বা শেখার পর্যায় বলে থাকে।
লার্নিং ফেইজ কি?
প্রতিবার যখন একটি পোস্টকে বুষ্ট করা হয় তখন এটি আপনার সেট করা টার্গেটেড অডিয়েন্স এর নিউজফিডে দেখানো শুরু হয়। এতে করে লার্নিং ফেইজ সিস্টেম আপনার এডটির জন্য সবচেয়ে এফেক্টিভ অডিয়েন্স এবং লোকেশন খুঁজে বের করে। বুষ্ট করার প্রথম ১০ ডলার বাজেট পর্যন্ত ফেসবুক লার্নিং ফেইজ পিরিয়ড বলা যায়। এই সময়ের যে রেজাল্ট আসে তা মুল রেজাল্ট হয় না। কখনো দেখবেন যে এড শুরুর সময় প্রতি মেসেজিং বা রিচ কোষ্টিং অনেক বেশী থাকলেও পরবর্তীতে এটি কমে একটি স্ট্যাবল পর্যায়ে চলে আসে। এছাড়াও ফেসবুক বিডিং সিস্টেমের কারণে বিভিন্ন সময় এটি বাড়তে বা কমতে পারে তবে সাধারণত বড় ধরনের কোন পরিবর্তন হয় না। লার্নিং ফেইজে থাকা এডটি লার্নিং পিরিয়ডে থাকে যাতে আপনার এডের জন্য সবচেয়ে ইফেক্টিভ অডিয়েন্স খুঁজে বের করা যায়।
এড রান হওয়ার কিছুক্ষণ পরের রেজাল্টেই হতাশ বা উৎফুল্ল হবেন না
বুষ্ট এর পর মিনিমাম ২৪ ঘন্টা এবং ম্যাক্সিমাম ৪৮ ঘন্টা পর্যন্ত এটিকে এর মতো রান হওয়ার সুযোগ দিন। আপনি যদি অডিয়েন্স সিলেকশনে কনফিডেন্স হয়ে থাকেন তবে এড কোষ্টিং কমে আসাটাই স্বাভাবিক। এরপরও যদি নির্দিষ্ট সময় পার হওয়ার পর এড কোষ্টিং উর্দ্বগামী থাকে তবে অডিয়েন্স সিলেকশনে পরিবর্তন আনুন। ইতিমধ্যে আসা অডিন্সেকে যাচাই করে সেই স্কেল অনুযায়ী এডটিকে আপডেট করুন। মনে রাখবেন, আপনি যখন একটি এড এ বড় ধরনের কোন এডিট করেন তখন এটি আবারও লার্নিং ফেইজে চলে যায়।
কষ্টিং কমিয়ে আনার উপায়
একটি এড যখন লার্নিং ফেইজে থাকে তখন সাধারণত এটির সিপিআর (কষ্ট পার রেজাল্ট) বেশী হয়। এই সময়ে রেজাল্ট স্টেবল পর্যায়ে থাকে না। কখনো দেখবেন যে সিপিআর অনেক বেড়ে গেছে আবার কখনো দেখবেন খুবই কমে এসেছে। কিছু বিষয় ম্যানটেইন করলে আপনার এডে বড় ধরনের পরিবর্তন আনা সম্ভব।
লার্নিং ফেইজ পার না হওয়া পর্যন্ত কোন এডিট বা আপডেট করবেন না
যতক্ষণ পর্যন্ত না আপনার এড কোষ্টিং স্টেবল হচ্ছে বা মোটামোটি লেভেলের একটি অবস্থায় গিয়ে দাড়াচ্ছে ততক্ষণ পর্যন্ত এটিকে রান করার সুযোগ দিন। এই সময়টি মিনিমাম ১০ ডলার স্পেন্ট না হওয়া পর্যন্ত দিন। ডিজিটাল মার্কেটিং অন্যতম একটি সুত্র অনুযায়ী একটি এড যখন ১০ ডলার খরচের পরও ভালো রেজাল্ট না দেয় তবে সেটি কন্টিনিউ করা যুক্তিযুক্ত নয়।
বাজেট নির্ধারণে সতর্ক হোন
অনেকেই আমাকে ইনবক্স করে ৫ বা ১০ ডলার বুষ্ট করাতে চায়। তাদের বক্তব্য “ভাই আগে ৫ ডলার করেন, রেজাল্ট দেখে বাজেট বাড়াবো”। বেশীরভাগ উদ্যোক্তারাই এখানে এই ভুলটি করে থাকেন। অনেকে তো ২, ৩ ডলারও টেস্ট পারপাজে স্পেন্ট করে থাকেন। কিছুক্ষেত্রে এটি ভালো রেজাল্ট দিলেও অধিকাংশ ক্ষেত্রেই এই এমাউন্ট লসের খাতায় চলে যায়। এজন্য আমি সময়সময় অন্তত ১৬ ডলার দিয়ে বাজেট শুরু করার পরামর্শ দেই। আমার মার্কেটিং অভিজ্ঞতায় সবচেয়ে ভালো রেজাল্ট জেনারেট করার এমাউন্ট গুলো হলো ১৬, ৪০ এবং ডেইলী বাজেট ৪ ডলার।
সঠিক ডিউরেশন সেট করুনঃ
ফেসবুকের ভাষ্যনুযায়ী একটি এড ভালো পারফর্ম করার জন্য অন্তত ৪ দিনের ডিউরেশন সেট করা উচিৎ। আপনি যদি এর কম সময় সেট করে বুষ্ট করেন তবে ভালো রেজাল্ট আসার সম্ভাবনা খুবই ক্ষীন। শুরুতেই অনেক পরিমাণে বাজেট দিবেন না
অনেকেই আছেন যারা এগ্রেসিভ ওয়েতে এড রান করতে পছন্দ করেন। বাজেটে ৫০০ বা ১০০০ ডলার বা এর বেশীও প্রতি এডের বাজেট একসাথে দিয়ে দেন। এতে করে ফেসবুক লার্নিং ফেইজে আপনার অনেক পরিমাণ বাজেট নষ্ট হতে পারে যা পরবর্তী সময়ে অনেক ভালো রেজাল্ট জেনারেট করতে পারতো। এর কারণে শুরুতে আগে মিনিমাম একটি এমাউন্ট সেট করুন, তবে সেটি যেন অবশ্যই সর্বমোট ৫০ ডলারের বেশী না হয়। লার্নিং ফেইজ এর পর এড যদি ভালো পারফর্মেন্স দেয় তবে বাজেট বাড়িয়ে দিতে পারেন। একসাথে অনেকগুলো এড রান করবেন না
একই এড ম্যানেজার থেকে একসাথে অনেকগুলো এড বুষ্ট করলে ফেসবুক লার্ণিং ফেইজ খুব কম টেস্ট রান করতে পারে। এতে করে আপনার এডগুলোর পারফরম্যান্স খারাপ হয় এবং পুরো এড ম্যানেজারের এডসে এর প্রভাব পড়ে। একের অধিক এডস হলে বাজেট কমবাইন করুন।
একই এডসেটে মাল্টিপল এডস করুন। নতুন করে কোন এডসেট তৈরী করার থেকে আগের যেই এডসেটে ভালো রেজাল্ট পেয়েছেন সেটি ব্যবহার করুন। নতুন বা আগের এডসেট, দুটির ক্ষেত্রেই প্রাথমিক লানিং ফেইজ চলে তবে পুরনো এডসেটের রেজাল্ট হিষ্টোরি থাকার কারণে এটি তুলনামূলক ভালো রেজাল্ট জেনারেট করতে পারে। প্রতি এডসেটে সর্বোচ্চ ৬টি পর্যন্ত এডস ভালো অপটিমাইজেশন আনতে পারে। লার্নিং ফেইজ পার হওয়ার পর সবচেয়ে ভালো পারফর্ম করা এডটি ছাড়া অন্যগুলো অফ করে দিন যাতে অতিরিক্ত খরচ না হয়।
সম্প্রতি ফেসবুক এডস ক্যাম্পেইনে বেশ বড় ধরনের পরিবর্তন আসায় আগের মতো যেকোন পোস্ট বা অডিয়েন্সই ভালো রেজাল্ট আসছে না। বর্তমান এলগরিদম অনুযায়ী কম খরচে সবচেয়ে ভালো রেজাল্ট পেতে এড এ্যসেট, গ্রাফিক্যাল ভিজ্যুলাইজেশন, কনটেন্ট এবং পাশাপাশি অডিয়েন্স সিলেকশন অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।
এছাড়াও ফেসবুক এড পলিসিগুলো জানা না থাকার কারণে অনেকেই ভুলবশত এড ম্যানেজার খোয়াচ্ছেন।

Facebook Business Manager (BM) Verification & Some Advance Setup

 

  • বিসনেস ম্যানাজার ওভারভিউঃ https://business.facebook.com/overview/ এই লিংক থেকে বিজনেস ম্যানেজার একাউন্ট তৈরি করে নিতে হবে, বিসনেসের রিয়েল মালিকের নাম> বিজনেস ওয়েব ইমেল > ইমেলে ভেরিফিকেশন কোড যাবে > এইসব ইউস করতে হবে।
  • ফ্রি ডোমেইন এন্ড হোস্টিং সাইটঃ ফ্রি ডোমেইন https://www.freenom.com/en/freeandpaiddomains.html হোস্টিংঃ https://www.freehosting.com/
  • কেন ইউস করবেন বিসনেস ম্যানাজার? You need more than one ad account. > You need to request access to Pages or ad accounts.> You need to assign permissions to a lot of people working together. > You need business-level insights and reporting. > Stay up to date with your business When you sign in to Business Manager, see alerts and insights about the Pages and ad accounts that matter most to your business.
  • কিভাবে এডস একাউন্ট তৈরি করবেনঃ ১ টার বেশি এডস একাউন্ট তৈরি করতে হলে, আগে এই লিংক https://business.facebook.com/overview/ হতে বিজনেস একাউন্ট তৈরি করে তারপর এই লিংক  https://business.facebook.com/settings/ad-accounts/  ভিজিট করে পরবর্তি স্টেপসগুলি ফলো করতে হবে Create an Ad account. > Navigate to the ‘Ad Accounts’ tab, select the blue ‘Add’ button, and click ‘Create a New Ad Account’. From the drop-down menu select ‘Create a new ad account’. Simply name your ad account, select your business page, enter your time zone, currency, and payment method.
  • পিক্সেল সেটাপ: > Data Source> Pixel Setup
  • সি এম এস / মার্কেটপ্লেস সেটাপঃ Data Source> Partner intrigrations
  • পেইজ কানেক্ট করতেঃ https://business.facebook.com/business_locations
  • নতুন লোক এডমিন এড করতেঃ  https://www.facebook.com/ads/manager/account_settings/information
  • পেমেন্ট মেথড এড করতেঃ https://www.facebook.com/ads/manager/account_settings/account_billing
  • কমার্স ম্যানাজার সেটাপ করতেঃ https://business.facebook.com/commerce_manager/get_started/
  • ফেসবুক বিজনেস ম্যানেজার ভেরিফিকেশন এবং চ্যাটবট কোর্স!: শর্তঃ বিজনেস ম্যানেজার একাউন্ট থাকা লাগবে> business verification process > in Business Manager by going to > Security Centre. In Security Cent, you can see your business verification status. আরো কিছু শর্ত হচ্ছেঃ একাউন্টে ২ স্টেপ ভেরিফিকেশন অন করতে হবে > ব্যাকআপ এডমিন এড করতে হবে > ডেভেলাপার একাউন্ট বা এপ আইডি তৈরি করে কানেক্ট করতে হবে
  • Remember: Not every business needs to go through business verification, and you may be ineligible to verify your business unless you need to access certain Facebook products and developer features. Learn more about business verification. https://www.facebook.com/business/help/2058515294227817?id=180505742745347
  • You may also be required to start business verification in the app dashboard if your app is required to go through App Review. www.bn.mahbubosmane.com/facebook-business-manager-verification/
  • Upload official documents to verify your business: https://www.facebook.com/business/help/159334372093366

  • Domain Verification Guideline: Business Setting > Brand Sefty> Domain https://developers.facebook.com/docs/sharing/domain-verification or https://developers.facebook.com/docs/sharing/domain-verification/verifying-your-domain

 

ফেসবুক শপ কিভাবে এড করবেন?

  • https://business.facebook.com/commerce_manager/get_started/

ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায়

 

ফেসবুক থেকে টাকা আয় করার বেশ কিছু উপায় রয়েছে। এখন আমি ধাপে ধাপে সে উপায় গুলো ব্যাখ্যা করবো এবং আপনাকে একটি পরিপূর্ণ গাইডলাইন দিব যাতে আপনিও ফেসবুক থেকে টাকা আয় করতে পারেন।

কিভাবে ফেসবুক পেজ থেকে টাকা আয় করা যায়

 

ফেসবুক কর্তৃপক্ষ এখন ফেসবুক পেজ থেকে টাকা আয় করার ব্যবস্থা করে দিয়েছে। আপনি চাইলে এখন আপনার ফেসবুক পেজ থেকে আয় করতে পারবেন। আপনি এটার মাধ্যমে ফেসবুক থেকে লংটাইম আর্ন করতে পারবেন। আপনাকে এর জন্য প্রথমে একটি ফেসবুক পেজ খুলতে হবে। আপনার মনে প্রশ্ন আসতেই পারে পেজ কিভাবে খুলবো? পেজ খোলার কিছু স্পেসিফিক গাইডলাইন আছে যা আপনাকে অবশ্যই মানতে হবে। তাই ফেসবুক পেজ খোলার নিয়ম এখনই জেনে নিন।

আপনি এবার সেই পেজে কনটেন্ট ভিডিও ইমেজ যেকোন বিষয়ের উপর রেগুলার পোস্ট করে যেতে হবে। আপনি এবার আপনার করা পোস্ট গুলো আপনার বন্ধু-বান্ধব, আপনার পরিবারের লোক আত্মীয়স্বজন সবার কাছে শেয়ার করতে থাকুন। আস্তে আস্তে যখন আপনার পেজের লাইক এবং ফলোয়ারের সংখ্যা বৃদ্ধি পাবে তখন আপনি আপনার পেজে আফিলিয়েট মার্কেটিং  করে আয় করতে পারবেন।

তাছাড়া আপনি আপনার ফেসবুক পেজে যে কনটেন্ট আপনি নিয়মিত ডেলিভারি করছেন সেই কনটেন্ট রিলেটেড অনেক কোম্পানি থাকবে আপনি সেখান থেকে চাইলে স্পনসরর্শিপ নিয়ে তাদের প্রোডাক্ট কে প্রমোট করতে পারেন। তাই আপনার পেজে কন্টেন্ট দেয়ার আগেই একটি পরিপূর্ণ প্ল্যান করে নিবেন যেন, আপনি সবসময় একটি নির্দিষ্ট বিষয়ে নিয়মিত কন্টেন্ট দিতে পারেন।

তাছাড়া আপনি চাইলে এখান থেকে ভিডিও মনিটাইজেশন এর মাধ্যমে আয় করতে পারবেন। আপনার ফেসবুক পেজে যদি ৩০ হাজারের বেশি ফলোয়ার হয়ে যায় তাহলে আপনি আপনার ফেসবুক পেজের ভিডিও গুলো মনিটাইজ এর জন্য আবেদন করতে পারবেন। আপনি এর মাধ্যমে ফেসবুক থেকে টাকা আয় করতে পারবেন। তাছাড়া আপনার যদি একাধিক ফেসবুক পেজ থাকে এবং সে পেজগুলোতে যদি বেশি ফলোয়ার থাকে তাহলে আপনি সেই পেজ গুলো বিক্রি করে টাকা আয় করতে পারবেন।

ফেসবুক মার্কেটপ্লেস থেকে টাকা আয়

 

আসলে এটি একটি সার্ভিস যেটির মাধ্যমে আপনি নিজের বা অন্য কারো নতুন-পুরাতন প্রোডাক্ট বিক্রি করে আয় করতে পারেন। আপনি প্লে স্টোর এর মাধ্যমে অনেকগুলো রিসেলিং এপ পেয়ে যাবেন। যেমন-Glowroad, Shop101, Messho.আপনি এই সমস্ত অ্যাপ গুলো আগে ইন্সটল করে নিন। তারপর এখানে রেজিস্ট্রেশন করার পর ব্যাংক ডিটেইলস সহ সবকিছু দিয়ে সাবমিট করে নিন।

আপনি এই অ্যাপ গুলোতে বিভিন্ন কোম্পানির বিভিন্ন প্রোডাক্ট পেয়ে যাবেন। আপনি সেই প্রোডাক্ট এর ছবি গুলো ডাউনলোড করে নিয়ে ফেসবুক মার্কেটপ্লেসে সেই ছবিগুলোকে লিস্ট করে দিন এবং সেখানে নিজের প্রাইস বেঁধে দিন। ধরুন আপনি ওই অ্যাপ থেকে একটি টি-শার্ট কিনলেন ১৫০ টাকা দিয়ে আপনি এবার আপনার প্রাইস করলেন ২৫০ টাকা। এই প্রোডাক্টটি বিক্রি করতে  পারলে আপনার কিন্তু ঠিকই ১০০ টাকা লাভ হয়ে যাবে।

এভাবে আপনি অনেকগুলো ফটো আপনার ফেসবুক মার্কেটপ্লেসে লিস্ট করে রাখতে পারেন। এবার যখন কোন ব্যক্তি আপনাকে ওই প্রোডাক্ট কেনার জন্য মেসেজ করবে তখন আপনি তার এড্রেস টা সেই অ্যাপসে আর সেখানে আপনার প্রাইস সেট করে দিন। এজন্য আপনি ফেসবুক শপ ডিজাইন কিভাবে করবেন তা জেনে নিন।

তারপর আপনি যে এড্রেসটি দিয়েছেন কোম্পানি সেই  অ্যাড্রেসে প্রোডাক্ট ডেলিভারি করে দিবে আপনার নামে। আর প্রডাক্টিভ বিক্রি হওয়ার পর কিছু কমিশন চলে যাবে আপনার ব্যাংক একাউন্টে।তো এভাবে আপনি  ফেসবুক মার্কেটপ্লেসে প্রোডাক্ট বিক্রি করে আয় করতে পারবেন।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে  আয়

 

আপনি চাইলে আপনি আপনার ফেসবুক পেজ বা গ্রুপে এফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করতে পারেন। আপনি যদি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কি না জানেন তাহলে আমি বলে দিচ্ছি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং হল কোন কোম্পানি  বা কোন প্রতিষ্ঠানের প্রোডাক্ট বিক্রি করে দেওয়া। তাদের প্রোডাক্ট আপনি বিক্রি করে দিলেন তারা এই প্রোডাক্ট বেচার জন্য আপনাকে কিছু কমিশন দিবে আর এটাকেই বলা হয়ে থাকে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করার জন্য অনেক বড় বড় ওয়েবসাইট রয়েছে আপনি চাইলে এই ওয়েবসাইটগুলোর অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রাম এ যোগদান করতে পারেন। আমাজন, আলিবাবা, ফ্লিপকার্ট আপনি এই ওয়েবসাইটগুলোতে অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রামে যোগদানের মাধ্যমে চাইলে আয় করতে পারেন। আর আপনার পেজের কন্টেন্ট যদি টেক রিলেটেড হয়, তাহলে তো কোন কাথাই নেই, আপনার ফেসবুক পেজ থেকে হিউজ পরিমাণ টাকা আয় করতে পারবেন।

  • ডিজিটাল মার্কেটিং

ফেসবুক এডস এর মাধ্যমে আয় 

 

আপনি যদি ফেসবুকে কিছু টাকা ইনভেস্ট করতে পারেন তাহলে ফেসবুক থেকে খুব সহজে এবং দ্রুত ভাবে আয় করতে পারবেন ফেসবুক এড ব্যবহার করার মাধ্যমে। এই মাধ্যমটি আসলে ফ্রী  না তবে আপনি যদি একটু বুদ্ধি খাটিয়ে কাজ করতে পারেন তাহলে আপনি এখানে যেই টাকা ইনভেস্ট করবেন তার চেয়ে বেশি টাকা আয় করতে পারবেন। ফেসবুক হল বিশাল একটি ট্রাফিক সোর্স এবং এখানে সব সময় কোটি কোটি অ্যাক্টিভ ট্রাফিক থাকে। এবার ধরুন আপনার কাছে হয়তো কোন প্রোডাক্ট আছে সেটা অ্যামাজনের বা ফ্লিপকার্টের মোবাইল টি-শার্ট গাড়ি বা কোন গ্যাজেট হতে পারে বা কোন রিসেলিং অ্যাপের হতে পারে।

আর এই সমস্ত কোম্পানির প্রোডাক্ট এর এফিলিয়েট লিংক আপনি যদি আপনার ফেসবুক পেজ বা গ্রুপে শেয়ার করতে পারেন এবং দেখা গেল আপনার প্রোডাক্টের প্রতি অল্প দুই -এক জন লোক ইন্টারেস্ট হলো এবং কয়েকটা প্রোডাক্ট সেল হলো।

আর আপনি যদি আপনার ওই প্রোডাক্ট ফেসবুক অ্যাড ব্যবহার করে লক্ষ লক্ষ মানুষের কাছে পৌঁছাতে পারেন তাহলে হয়তো এখানে অনেক প্রডাক্ট বিক্রি হওয়ার আশা থেকে যায়। তাহলে এক্ষেত্রে আপনার আয়ের পরিমাণটা ও কয়েক গুণ বেড়ে যাবে অনেকাংশে। তাহলে আপনি এতক্ষণে নিশ্চয়ই বুঝে গেছেন ফেসবুকে এড ঠিকভাবে যদি রান করা যায় এবং সেটা বুদ্ধি করে যদি করা যায় তাহলে আপনি যা ইনভেস্ট করবেন তার তিন থেকে চার গুণ এর বেশি আপনি সেখান থেকে পাবেন।

ফেসবুকে ভিডিও আপলোড করে টাকা আয় 

 

আপনি কি কথাটা শুনে অবাক হয়ে গিয়েছেন? না অবাক হওয়ার কিছু নাই এখানে। ইউটিউব এর মত ফেসবুকেও এখন ভিডিও আপলোড করে টাকা আয় করা যাচ্ছে। আপনি আপনার ফেসবুক ভিডিও গুলোতে মনিটাইজ করে ইউটিউব এর মত ফেসবুক থেকে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। ইউটিউবে যেমন গুগল এডসেন্স ব্যবহার করে ভিডিও মনিটাইজ করে টাকা আয় হয় তেমনি ফেসবুকে এড চয়েজের মাধ্যমে কাজ করে টাকা আয় করা যায়।

ফেসবুক ভিডিও মনিটাইজ করতে হলে আপনার একটি ফেসবুক পেজ থাকা লাগবে। তারপর ইউটিউবে যেমন কোয়ালিফাই দিতে হয় মিনিটের জন্য তেমনি আপনাকে ফেসবুকে কোয়ালিফাই দিতে হবে মনিটাইজ এর জন্য। আপনার ফেসবুক পেজে ১০,০০০ লাইক এবং দুই মাসে আপনার ভিডিওতে ৩০,০০০ এক মিনিটের ভিউ চাই। এই শর্তগুলো পূরণ করা হয়ে গেলে আপনি ফেসবুকের কাছে মনিটাইজ এর জন্য  এপ্লাই করতে পারবেন। আপনার পেজ অ্যাপ এপ্রুভ হয়ে গেলে আপনার ভিডিও গুলোতে অ্যাড আসা শুরু করবে এবং আপনার আয়ও শুরু হয়ে যাবে এর মাধ্যমে।

 ফেসবুক ভিডিও থেকে আয়ঃ– ফেসবুকে ভিডিও এবং লাইভ করে টাকা আয় করা যায়। ফেসবুকে টাকা আয় করার এই সুবিধাকে বলা হয় Facebook Ads Break. অর্থাৎ আপনার ভিডিওতে ফেসবুক অ্যাড দেখাবে, সেই অ্যাড থেকে আয়ের কিছু অংশ আপনাকে দিবে। এই সুবিধাটি পেতে হলে বেশ কিছু শর্ত পূরণ করতে হয়। প্রথমত আপনার পেজটি তাদের কাছে মনোনীত হতে হবে। এক্ষেত্রে শর্তসূমহ হলো:-

  • আপনার ফেসবুক পেজে ১০,০০০ ফলোয়ার থাকতে হবে।
  • শেষ ৬০ দিনে ১৫,০০০ হাজার মানুষের নিকট আপনার পোস্ট/ভিডিও পৌছাতে হবে।
  • শেষ ৬০ দিনে আপনার ফেসবুক পেজের ভিডিওতে কমপক্ষে ৩০,০০০ ভিউস থাকতে হবে এবং প্রত্যেকটি ভিউ কমপক্ষে ১ মিনিটের হতে হবে। তাছাড়া আপনার প্রত্যেকটি ভিডিও কমপক্ষে ৩ মিনিট লম্বা হতে হবে। কারণ ৩ মিনিটের ছোট ভিডিওতে ফেসবুক বিজ্ঞাপন দেখায় না।
  • আপনার বয়স অবশ্যই কপক্ষে ১৮ বছর হতে হবে।
  • ফেসবুক এর Partner Monetization Policies মেনে ভিডিও তৈরি করতে হবে।

এছাড়া লাইভ ভিডিও করে টাকা আয় করতে পারবেন। এক্ষেত্রে লাইভ ভিডিওর শর্তসমূহ হলো:-

  • ভিডিও ৪ মিনিটের বেশী হতে হবে।
  • কমপক্ষে ৩,০০ জন ভিডিওটি দেখতে হবে।

ফেসবুক গ্রুপ থেকে কিভাবে টাকা ইনকাম করা যায়

 

ফেসবুক গ্রপ মার্কেটিং টা যদি আপনি ভালোভাবে বুঝতে পারেন তাহলে আপনি অনেক বেশি পরিমাণে টাকা আয় করতে পারবেন। মনে রাখবেন, ফেসবুক পেজ হলো ওয়ান ওয়ে কমিউনিকেশন। অর্থাৎ, এখানে শুধু আপনি কথা বলবেন আর আপনার অডিয়েন্স আপনার কথা শুনে যাবে, তাদের বলার কিছু থাকবে না। অন্যদিকে ফেসবুক গ্রুপ হলো টু-ওয়ে কমিউনিকেশন, এটি একটি কমিউনিটি। অর্থাৎ, এখানে আপনিও কথা বলবেন আপনার অডিয়েন্সরাও কথা বলতে পারবে। আপনার গ্রুপে যদি ভালো কাজ করেন, তাহলে আপনার অডিয়েন্সরাই আপনার বিজনেসের মার্কেটিং করে দিবে। এটি ফেসবুকে মার্কেটিং করার একটি অথেনটিক উপায়।

তাহলে বুজতেই পারছেন, আপনি যদি একটি ফেসবুক গ্রুপ তৈরি করতে পারেন তাহলে আয় করার অসংখ্য উপায় নিজেই পেয়ে যাবেন। সেক্ষেত্রে, আপনাকে সমসময় আপনার গ্রুপে অডিয়েন্সদের বিভিন্ন একটিভিটির মাধ্যমে এনগেইজড রাখতে হবে।

ফেসবুক মার্কেটিং ম্যানেজার হিসেবে ফ্রিল্যান্সিং করে টাকা আয় করার উপায়

 

আমি আশা করছি ফ্রিল্যান্সিং কি সে সম্পর্কে আপনার পরিপূর্ণ ধারণা আছে। যদি না থাকে তাহলে ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবেন তা আমাদের ব্লগ থেকে জেনে নিতে পারেন। ফাইভারআপওয়ার্ক সহ বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে গেলে দেখতে পাবেন, ফেসবুক মার্কেটিং ম্যানেজার হিসেবে কাজ করার জন্য প্রচুর জব অফার আছে। আপনি যদি ফেসবুক মার্কেটিং ভালোভাবে শিখতে পারেন তাহলে ফ্রিল্যান্সিং করে প্রচুর টাকা আয় করার সুযোগ আছে আপনার জন্য।

এজন্য আপনাকে ফেসবুকে এড কিভাবে রান করতে হয় তা শিখতে হবে। আপনাকে তার ফেসবুক পেজ ম্যানেজমেন্ট করার জন্য হায়ার করবে। তাই ফেসবুক পেজ কিভাবে চালাতে হয় তা শিখে ফেলুন। আর এই কাজগুলো আপনি মোবাইল দিয়েই করতে পারেন। ছাত্রদের জন্য অনলাইনে আয় এবং মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকামের জন্য ফেসবুক সবচেয়ে ভালো মাধ্যম।

আমাদের শেষ কথা 

ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায় এ সম্পর্কে আপনাদের পরিপূর্ণ ধারণা দিয়েছি। ফেসবুক থেকে টাকা আয় করার আরো অনেক মাধ্যম রয়েছে। তবে যে কয়টি মাধ্যম নিয়ে আমরা আজকে আলোচনা করলাম এই মাধ্যমগুলো হল ফেসবুক থেকে টাকা আয়ের এর সবথেকে জনপ্রিয় কয়েকটি মাধ্যম। আপনারাও ফেসবুক থেকে টাকা আয় করতে পারবেন ইচ্ছা করলে। সেই জন্য আপনার মধ্যে থাকতে হবে প্রবল ইচ্ছাশক্তি, পরিশ্রম করার মানসিকতা এবং হার না মানার প্রত্যয় তাহলে আপনি ফেসবুক থেকে আয় করতে পারেন।

আপনার মনে কোন প্রশ্ন আছে? অথবা আমাদের থেকে কল পেতে চান?

 

তাহলে নিচের ফরমটি পুরন করুন, আমরা আপনার সাথে যোগাযোগ করবো, ইংশাআল্লাহ! আপনি আমাদেরকে ০১৭১৬ ৯৮৮ ৯৫৩ / ০১৯১২ ৯৬৬ ৪৪৮ এই নাম্বারে কল করতে পারেন, অথবা ইমেল করতে পারেন hi@mahbubosmane.com এই ইমেলে, আমরা আপনাকে কোনভাবে সাহায্য করতে পারলে খুশি হব, ধন্যবাদ ।


    মাহবুবওসমানী.কম এর সার্ভিস সমূহঃ

     

    Leave a Comment

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

    This div height required for enabling the sticky sidebar
    Ad Clicks : Ad Views : Ad Clicks : Ad Views : Ad Clicks : Ad Views : Ad Clicks : Ad Views : Ad Clicks : Ad Views : Ad Clicks : Ad Views :