পেমেন্ট গেটওয়ে সমাধান

/
/
/
34 Views

আমাদের মধ্যে যারা নিজেদের মার্কেটপ্লেসে/কোম্পানির নিজস্ব ওয়েবসাইটে সেল করেতে চান বা করছেন । তাদের জন্য পেমেন্ট গেটওয়ে একটি চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখা দেয়। যেহেতু আমাদের কোম্পানি এই রিলেটেড সার্ভিস প্রদান করে তাই
আজকে এই বিষয়ে কিছু তথ্য দেয়ার চেস্টা করব এবং পাশাপাশি কিছু সমাধান দেয়ারও চেস্টা করব।

প্রথমেই পেমেন্ট গেটওয়ে কি এবং কিভাবে কাজ করে এই বিষয় গুলো বাদ দিচ্ছি । কারন ডেভেলপার মাত্রই এই ব্যাপারে বিস্তারিত জ্ঞান রাখেন বলে মনে করি ।

এই আলোচনায় শুধুমাত্র সে সব পেমেন্ট গেটওয়ে/ ই-মানি কোম্পানি গুলো নিয়ে আলোচনা করব যাদের ওয়েবসাইট চেক আউট ফ্যাসিলিটিজ/API আছে এবং মার্কেটে ভাল এক্সিটিং কাস্টমার এবং জিওগ্রাফিক কাভারেজ আছে।

গ্লোবালি অনেক গেটওয়ে /ই মানি ট্র্যান্সফার কোম্পানি আছে । তার মধ্যে বহুল ব্যবহৃত কোম্পানিগুলোকে আমি আজকের আলোচনায় তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। প্রায় পাচ বছর ধরে ইন্টারন্যাশনাল মার্কেটে কনসালটেন্ট হিসেবে কাজ করার সুবাদে যেটা উপলব্ধি করতে পেরেছি যে মানুষ সব সময় ক্রেডিট কার্ড কে পেমেন্ট করার লাস্ট অপশন হিসেবে ব্যবহার করে থাকে। তাই বেটার এক্সপেরিয়েন্সের জন্য আপনি কাস্টমার কে একাধিক পেমেন্ট মেথড অফার করলে আপনার সেলস অনেকাংশে বৃদ্ধি পাবে।কারন জীওগ্রাফি অনুযায়ী ভিন্ন ভিন্ন গেটওয়ে/ই-মানি কোম্পানির জনপ্রিয়তা রয়েছে ।

চলুন আলোচনা শুরু করা যাক ।

১। ক্রেডিট কার্ড পেমেন্ট প্রসেসর
২। পেপেল
৩।ব্যাংক পেমেন্ট
৪। স্ক্রিল
৫। ওয়েব মানি
৬।পার্ফেক্ট মানি
৭ আলি পে

বিস্তারিত –

১। ক্রেডিট কার্ড পেমেন্ট প্রসেসর -ইন্টারনেট এর মাধ্যমে সব চাইতে বেশি লেনদেনের পদ্ধতি । শুধু মাত্র ইউ এস এ 2017 তে 40.8 বিলিয়ন ক্রেডিট কার্ড ট্রানজেকশন হয়েছে । তাই অনলাইন পেমেন্ট এর জন্য এইটার বিকল্প নেই ।ক্রেডিট কার্ড এক্সেপ্ট করা একটি অনলাইন ভিত্তিক কোম্পানির জন্য অত্যাবশ্যকীয় ।

ক্রেডিট কার্ড প্রসেস করার জন্য সারা পৃথিবীতে হাজার হাজার গেটওয়ে কোম্পানি আছে। সবার প্রথম পছন্দ Stripe/Authorize/wordpay এবং 2CO।
তবে স্ট্রাইপ সহ অন্যান্য গেটওয় গুলো বেশিরভাগই বাংলাদেশীদের একসেপ্ট করে না।

তাহলে উপায় কি ??🤔

✔️সমাধান ১- ক্রেডিট কার্ড প্রসেস করার জন্য বর্তমানে বাংলাদেশি অনেক গুলো পেমেন্ট প্রসেসর কোম্পানি রয়েছে যারা গ্লোবাল পেমেন্ট এক্সেপ্ট করছে । তাই প্রথমে বাংলাদেশি প্রোভাইডার এর সাথে কথা বলে দেখুন ।

সুবিধা-বাংলাদেশি রেজিস্টার্ড বিজনেস এক্সেপ্ট করে। লোকাল ব্যাংকে পেমেন্ট করে থাকে। লোকাল অফিস রয়েছে।

অসুবিধা-ইন্টারনেটভিত্তিক সব বিজনেস মডেল একসেপ্ট করো না। সিকিউরিটি ডিপোজিট এবং রেফারেন্স অত্যাবশ্যক। ফি একটু বেশি হতে পারে ।

✔️ সমাধান -২ 2CheckOut- এই কোম্পানি জনপ্রিয়তার অন্যতম কারন বাংলাদেশিদের এক্সেপ্ট করে। শতকরা 100 জন এপ্লিকেশন মধ্যে 10-15% এপ্রোভ করে থাকে।যেহেতু আপনার ওয়েব ডেভেলপমেন্ট/ডিজাইনিং কোম্পানি। এপ্রোভাল পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি।

সুবিধা- বাংলাদেশি এপ্লাই করতে পারবে। কার্ড ও পেপেল পেমেন্ট এক্সেপ্ট করতে পারবেন।
অসুবিধা-অ্যাপ্রভাল রেশিও কম ।সার্ভিস চার্জ বেশি।বিশেষ কোনো কারণ না দেখিয়ে একাউন্ট সাসপেন্ড করে দেয়ার ঘটনা সাধারন ব্যপার।

এ বিষয়ে আপনি গুগল করতে পারেন।শুরু করার জন্য ভাল ।

✔️ সমাধান -৩- পরিচিত কেউ গ্লোবাল গেটওয়ে এক্সেপ্টেড কান্ট্রিতে থাকলে সাহায্য নিতে পারেন।অথবা কারো সাথে পার্টনারশিপ করতে পারেন। এক্ষেত্রে তার সাথে অবশ্যই বিজনেস এর টার্মস এবং প্রফিট শেয়ার কিভাবে করবেন,করলে কত টুকু ইত্যাদি ক্লিয়ার করে নেন। অবশ্যই হাই ট্যাক্স কান্ট্রি যেমন অস্ট্রলিয়া ,ফ্রান্স এবং ইউরোপিয়ান আরো কিছু দেশের পার্সোনাল একাউন্ট এড়িয়ে চলা উচিত। কারন ঐ গুলোতে পার্সোনাল ট্যাক্স রেট বেশি। যেটা হয়তবা আপনি দিতে চাইবেন না।

✔️ সমাধান-০৪: এক্সেপ্টেড কাট্রিতে লিগ্যাল এন্টাইটি ক্রিয়েট করার মাধ্যমে সলিউশন করা যায় । বিজনেস গ্লোবালাইজার এই রিলেটেড সার্ভিস দিয়ে থাকে।
অনেক কোম্পানি এই ধরনের সার্ভিসটি দিয়ে থাকেন। প্রোভাইডার ও ফিচারভেদে সার্ভিস প্রাইস আনুমানিক ৫০০ থেকে ৪০০০ ডলার পর্যন্ত হতে পারে। ৯০% গ্লোবাল এন্টারপ্রেনার যাদের দেশে ফ্যাসিলিটি নেই বা প্রক্রিয়াটি জটিল । তারা কোন না কোন ভাবে এই জাতীয় কোন সলিউশন দিয়ে বিজনেস করতেছেন।

২। পেপেল – ২৮৬ মিলিয়ন এক্টিভ ইউজার এবং 200 দেশে অপেরারেশন থাকার কারনে পেপেল নিজেকে ইন্টারনেট দুনিয়ার অপ্রতিদ্বন্দ্বী পেমেন্ট প্রসেরর এবং ই- মানি ট্র্যান্সফার কোম্পানি হিসেবে স্থাপন করেছে । তাই ইন্টারনেট দুনিয়ায় পেপেল এর অল্টারনেটিভ চিন্তা করা অসম্ভব ।এবং এইটা সম্ভবত আমাদের দেশের এন্টারপ্রেনার দের চ্যালেঞ্জিং । যেহেতু পেপেল আমাদের দেশে নাই😒🙄 । তবে বেশি দুঃখিত হওয়ার কিছু নাই । আপনি একাই হতভাগা নন । পেপেল নাই এই রকম দেশের সংখ্যা ২৪ টি । আরো বড় হতভাগা কিছু দেশ আছে। যেখানে পেপেল আছে কিন্তু রিসিভিং মানি অপশন নাই । মানে কারো থেকে পেমেন্ট রিসিভ করতে পারবে না। এই রকম দেশের সংখ্যা ৮৫ টি । তার মানে পেপাল দিয়ে বিজনেস করতে পারবে না এই রকম হতভাগ্য দেশের সংখ্যা ১০৯ ।
আর স্ট্রাইপ মাত্র ৩৪ টি দেশে তাদের কার্যক্রম চালাচ্ছে । তবে স্ট্রাইপ ছাড়াও আরো অনেক কোম্পানি আছে। তবে সে গুলোর ৯৫% ভাগ বাংলাদেশী এক্সেপ্ট করে না।

তবে কি আমরা থেমে যাবে ?
অবশ্যই না -where there’s a will there’s a way.

✔️সমাধান- ক্রেডিট কার্ড সংক্রান্ত ২,৩ ও ৪ নং প্রযোজ্য। এক্ষেত্রে উল্লেখ্য যে স্ট্রাইপ এটলাস/ইউজ এস কম্পানি ফর্মেশন এর মাধ্যমে উপরোক্ত সুবিধা ব্যবহার করা অনেকটাই কঠিন। প্রফেশনাল সাহায্য নেয়া উচিত।

Business Globalizer কিভাবে নন এক্সেপ্টেড কান্ট্রি থেকে লিগালি পেপেল চালানো যায় এবং পেপালের টাকা ব্যাংকিং চ্যানেলের মাধ্যমে বাংলাদেশে নিয়ে আসা যায় এ ব্যাপারে সহযোগিতা করে থাকে।

পেপাল সংক্রান্ত সুবিধা এবং অসুবিধা অন্য আরেকদিন লিখবো।

৩। ACH FOR USA ,SEPA FOR EU ,BACS FOR UK -লোকাল ব্যাংক ট্রান্সফার তথা ডাইরেক্ট ডেবিট অপশন গুলো জনপ্রিয় হয়ে ঊঠেছে । এক্ষেত্রে আপনি যে দেশের/এরিয়া টাকা রিসিভ করবেন সেই দেশের ব্যাংক একাউন্ট থাকা লাগবে । এর মাধ্যমে আপনি খুব দ্রুত টাকা রিসিভ করতে পারেন। তবে সেক্ষেত্রে আপনার ঊক্ত দেশে ব্যাংক একাউন্ট থাকা লাগবে । পরবর্তীতে সেই টাকা আপনি বাংলাদেশের ট্রানস্ফার করে নিয়ে আসতে পারবেন।

৪ । স্ক্রিল – ২০১ টি দেশে অপারেশন ,১২০০০০ মারচেন্ট এবং ২৫ মিলিয়নের বেশি এক্টিভ ইউজার নিয়ে স্ক্রিল বেশ পপুলার । ইউরোপ,এশিয়া এবং অস্ট্রলিয়া মহাদেশীয় কান্ট্রি গুলো থেকে সেলস জেনারেট করার জন্য বেশ পপুলার মাধ্যম হিসাবে সমাদৃত ।বাংলাদেশের মত উন্নয়নশীল দেশ গুলোতে স্ক্রিল বেশ জনপ্রিয়।

সুবিধা-স্ক্রিল থেকে বাংলাদেশের যে কোন ব্যাংকে ট্রান্সফার করা যায় ।
অসুবিধা-বাংলাদেশ থেকে বিজনেস একাউন্ট অ্যাপ্রুভ হয় না বললেই চলে।

৫। ওয়েবমানি- আপনার যদি রাশিয়া,চায়না,ইস্টার্ন ইউরোপ মার্কেট থেকে সেলস জেনারেট করার ইচ্ছা থাকে । তাহলে এইটা আপনার সাইটে ইন্টিগ্রেট করা উচিত।

সুবিধা- নো রিফান্ড পলিসি কোম্পানি । তাই ডিসপিউট ও চার্জ ব্যাক সংক্রান্ত সমস্যা থেকে বেঁচে থাকতে পারবেন। বাংলাদেশী টাকা টান্সফার করা যায়। বাংলাদেশিদের জন্য পার্সোনাল অ্যাকাউন্ট অ্যাপ্রুভ করে।

অসুবিধা-একাউন্ট ফুল ভেরিফাই করা একটি ঝামেলাপূর্ণ প্রসেস।

৬।পার্ফেক্ট মানি -চায়না ,রাশিয়া , ইস্টার্ন ইউরোপ ,আফ্রিকান মার্কেট থেকে পেমেন্ট নেয়ার পার্ফেক্ট মাধ্যম।

সুবিধা- নো রিফান্ড পলিসি কোম্পানি । তাই ডিসপিউট ও চার্জ ব্যাক সংক্রান্ত সমস্যা থেকে বেঁচে থাকতে পারবেন। বাংলাদেশী টাকা টান্সফার করা যায়। বাংলাদেশিদের জন্য পার্সোনাল অ্যাকাউন্ট অ্যাপ্রুভ করে।

অসুবিধা-একাউন্ট ফুল ভেরিফাই করা একটি ঝামেলাপূর্ণ প্রসেস।

৭। আলিপে – নাম দেখেই বুঝতে পারছেন যে এইটা চায়নার লিডিং ইকমার্স জায়ান্ট আলি এক্সপ্রেস এর সিস্টার কন্সার্ন । চায়নিজ মার্কেটের ডমিনেটর । বর্তমানে এশিয়া এবং ইউরোপ মার্কেটেও জনপ্রিয়তা পাচ্ছে।

উপরের ৭ টা পেমেন্ট পদ্ধতি যদি কোন সাইটে থাকে । ৯৫% বেশি চেকআউট করতে ইচ্ছুক কাস্টমার পেমেন্ট করতে পারবেন ।

আশা করি আমার আলোচনা থেকে আপনাদের কিছুটা উপকার হয়। লেখাটি সার্থক 🙂

যে কোন প্রশ্ন/মতামত জানতে পারেন ।

গ্লোবাল কোম্পানি ফরমেশন ,রিমোট বিজনেস ব্যাংকিং,অফ শোর বিজনেস,
এবং হাই রিস্ক মার্চেন্ট কন্সাল্টিং নিয়ে যে কোন প্রশ্ন থাকলে করতে পারেন। ধন্যবাদ

Written By: Abdullah Al Mamun 

এখনো আপনার মনে কোন প্রশ্ন আছে? অথবা আমাদের থেকে কল পেতে চান?

তাহলে নিচের ফরমটি পুরন করুন, আমরা আপনার সাথে যোগাযোগ করবো, ইংশাআল্লাহ! আপনি আমাদেরকে ০১৭১৬ ৯৮৮ ৯৫৩ / ০১৯১২ ৯৬৬ ৪৪৮ এই নাম্বারে কল করতে পারেন, অথবা ইমেল করতে পারেন hi@mahbubosmane.com এই ইমেলে, আমরা আপনাকে কোনভাবে সাহায্য করতে পারলে খুশি হব, ধন্যবাদ ।

মাহবুবওসমানী.কম এর সার্ভিস সমূহঃ

 

  • Facebook
  • Twitter
  • Google+
  • Linkedin
  • Pinterest

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

It is main inner container footer text