img

Positive Thinking Can Change Everything

/
/
/
19 Views

Positive Thinking Can Change Everything!

a negative mind never will give you a positive life

আসলে আমাদের জীবন যত ভালোভাবেই কাটুক না কেনো, জীবনের এক বা একাধিক সময়ে জীবন নিয়ে দুঃখ অনুভব করি অথবা নেগেটিভ চিন্তা করি। জীবনের খারাপ সময়গুলি মানুষের উপর অনেক নেগেটিভ প্রভাব ফেলে। জীবনের খারাপ সময়গুলিতে আমরা চিন্তা করি সব কিছু অসম্ভব, সবাই আমাকে ঘেন্না করে, তখন আমরা জীবন সম্পর্কে আশা ছেড়ে দেই, হতাশ হয়ে যাই, এ ছাড়া আরো অনেক খারাপ কিছু চিন্তা করি।

 

আমার, আপনার তার মানে কারো জীবনই ১০০% পারফেক্ট না, সবার জীবনে কিছু না কিছু কারন থাকে যা তাকে দুঃখিত করে, রাগান্বিত করে, যার কারনে ব্যক্তি চিন্তা করে আমি হেল্পলেস, আমার দ্বারা কিছু হবে না, আসলে ওই সময়টাতে পজেটিভ চিন্তা করা অনেক কঠিন,

 

আপনার জীবনে যত খারাপ অবস্থাই আসুক না কেন,  আপনি যদি পজেটিভ ভাবে চিন্তা করতে পারেন, এই কঠিন অবস্থার সময় অনেকটা ভালো থাকতে পারবেন আর পরবর্তীতে আপনি খুব সহজে ঘুরে দাড়াতে পারবেন।

 

পজেটিভ চিন্তার করলে আপনি যেই সুবিধাগুলি পেতে পারেন।

the power of positive thinking

  • ভিন্ন কোন পথ বা রাস্তা।
  • ভালো অনুভব করবেন যার জন্য নতুন কোন কাজ শুরু করার জন্য এক্সট্রা প্রেরনা পাবেন।
  • আগের ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে নতুন করে পথ চলতে পারবেন।
  • নিজেকে সান্তনা দিতে পারবেন, যা আপনার বর্তমান অবস্থাকে উন্নত করতে সাহায্য করবে।
  • আপনার ক্যরিয়ার, অর্থ, পরিবারকে গঠনে হেল্প করবে পজেটিভ চিন্তা।
  • আপনার লক্ষে পোঁছতে পারবেন।
  • আপনি সুখি হতে পারবেন।

 

আসলে নেগেটিভ চিন্তা করা মানে হচ্ছে সময়ের অপচয় করা, আপনি অনেক বেশি সুখি হবেন যদি নেগেটিভকে ভুলতে পারেন আর পজেটিভ কাজ নিয়ে নিজেকে ব্যাস্ত রাখতে পারেন। আপনি পজেটিভ হলে আপনার অর্থনীতিক অবস্থা,  কর্মজীবনের অবস্থা, জীবনের গতি প্রকৃতি এছাড়া জীবনের অন্যান্য ক্ষেত্রে অনেক বেশি উন্নতি করতে পারবেন।

 

পজেটিভ লাইফ পেতে হলে কিছু টিপসঃ

 

বেশি হাসুনঃ 

হাঁসি অনেকটা ছোঁয়াচে রোগের মতো ব্যক্তি থেকে ব্যাক্তি ছড়িয়ে পরে। গবেষণায় পাওয়া যায়, হাঁসি আপনার মেজাজকে ঠিক রাখে, খারাপ অবস্থা থেকে ঠিক করে। আপনার যদি জোর করে হাঁসতে হয়, জোর করেই হাসুন।

হাসুন, যখন আপনি কারো সাথে সময় অতিক্রম করুন, ফোনে কথা বলার সময়, যখন আপনার কোন প্রিয় ব্যাক্তি আপনার বাসায় আসে ও এছাড়া আরো অনেক কারনে হাঁসতে পারেন।

 

নেগেটিভ ব্যাপারগুলির সাথে কম সময় অতিবাহিত করুনঃ 

নেগেটিভ ব্যাপারগুলি ব্যক্তি জীবনে বেশি সময় ধরে প্রভাব বিস্তার করে, দিন ব্যাপি, সপ্তাহ ব্যাপি এমনকি আরো বেশি সময়ের জন্য এটা হতে পারে, অন্যদিকে পজেটিভ ব্যাপারগুলি মানুষের জীবনে এতো সময় ধরে প্রভাব বিস্তার করেনা। যেহেতু নেগেটিভ চিন্তা আপনাকে কোনভাবে হেল্প করতে পারেনা, আপনি তা এখনি বন্ধ করে দিন। নেগেটিভের পরিবর্তে পজেটিভ ব্যাপারগুলি নিয়ে চিন্তা করুন, জীবনকে উপভোগ করুন।

 

আপনার যা আছে তার জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করুনঃ 

পরবর্তীতে আপনার জীবনে খারাপ কিছুর মূখোমুখি হলে খারাপটা বাদ দিয়ে চিন্তা করুন আপনার জীবনের প্রাপ্তিগুলি নিয়ে, এটাই হচ্ছে পজেটিভ চিন্তার শক্তি। আপনি কৃতজ্ঞ হোন আপনার পরিবারের জন্য, বন্ধুদের জন্য, কাজের জন্য, পূর্বের ভালো কোন অভিজ্ঞতার জন্য এই ভাবে আরো অনেক কিছু নিয়ে চিন্তা করতে পারেন।

পজেটিভ জিনিস নিয়ে চিন্তা করলে আপনি নিজেই চিন্তা করবেন, “আমার এতো কিছু আছে?” তখন আপনি নিজেই হেঁসে উঠবেন আর বলবেন, কেনো আমি এতো নেগেটিভ”

 

খারাপ অভিজ্ঞতার মধ্যে পজেটিভ কিছু খুঁজে বের করুনঃ 

খারাপ অভিজ্ঞতার মধ্যেও পজেটিভ কিছু থাকতে পারে, যদিও খারাপ সময়ে তা খুঁজে বের করা টাফ। যেমন, খারাপ অভিজ্ঞতার মধ্যে আপনি নতুন কিছু শিখতে পারলেন, আপনি বুঝতে পারলেন আপনি ভুল করেছেন, এমন কিছু নতুন পরিকল্পনা বা বুদ্ধি পেয়ে গেলেন যা আপনি আগে চিন্তা করেন নাই, এছাড়া আরো অনেক কিছু হতে পারে।

নেগেটিভ হতে শিক্ষা নিলে আপনি পরবর্তীতে এমন কোন অবস্থায় পড়লে খুব ভালোভাবে তা মোকাবেলা করতে পারবেন অথবা কেউ সেম ভুল করলে পরামর্শ দিতে পারবেন।

 

পজেটিভ লোকদের সাথে বেশি সময় কাটাতে চেস্টা করুনঃ 

আপনার আশেপাশে সব ধরনের লোকই  পাবেন, তবে আপনাকে পজেটিভ লোকের সাথে থাকতে হবে কারন নেগেটিভ লোক আপনাকে তাদের দিকে নিয়ে যাওয়ার চেস্টা করবে। তবে নেগেটিভ লোক দেখে তাদের থেকে শিক্ষা নিতে হবে।

 

 অন্যকে হেল্প করাকে পজেটিভ ভাবে দেখুনঃ 

অন্যকে সুখি করে নিজে সুখি হতে পারেন, যদিও এটা অন্যরকম শুনায়, কিন্তু এটাই বাস্তব। আপনার মাধ্যমে কেউ যদি একটু হেল্প পায়, কেনো নয়?

একটা থাঙ্ক ইউ বলেন, আপনার ভালোবাসার মানুষের জন্য একটা কার্ড পাঠান, কারো জন্য দরজাটা একটু খোলা রাখুন , সবাইকে হ্যালো বলার চেস্টা করুন, এইভাবে আর অনেক কিছু হতে পারে, যেমনঃ

রিলেশনশিপের প্রতি সৎ, নিষ্ঠাবান ও কেয়ারী হতে পারেন। “আমার কথাই ঠিক, অন্যেরটা ভুল” এমন চিন্তাভাবনা পরিহার করুন। ভুল স্বীকার করার, আপোষ করার অভ্যাস গড়ে তুলুন। সন্দেহ থাকলে বেনিফিট অফ ডাউট দিন। আম্মু-আব্বু, ভাই-বোন, বাসায় কাজের লোক, সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা-বোধ বাড়ান। যে রিক্সাচালক আপনাকে ভার্সিটিতে পৌঁছে দিছে, টঙ্গের যে চা দোকানদার আপনাকে চা বানিয়ে খাইয়েছে, যে যাত্রী নেমে যাওয়ায় আপনি বাসে সীট পেয়েছেন, সবাইকে নিজের ভিতর থেকে ফিল করে থাঙ্কু বলুন। কারণ দরদ দিয়ে কাউকে থাঙ্কু বললে, নিজের ভিতরেও একটা পরিতৃপ্তি আসে। আর পরিতৃপ্তির সংখ্যা বাড়াতে পারলেই জীবনে সুখী হতে পারবেন।

 

আশাবাদী হতে হবেঃ 

পজেটিভ থাকতে হলে আপনাকে আশাবাদী হতেই হবে, আপনার জীবনে যত খারাপ অবস্থাই আসুক না কেন তা পজেটিভলি নিতে হবে, শুধুমাত্র সর্ব অবস্থায় আপনাকে  চিন্তা করতে হবে কীভাবে জীবনের উন্নতি করা যায়, আরেকটু, আরেকটু বেশি।

 

Positive Thinking Can Change Everything? What do you think about it?

  • Facebook
  • Twitter
  • Google+
  • Linkedin
  • Pinterest

Leave a Reply

It is main inner container footer text